Monday, July 27, 2020

Sri Tapan Ghosh: Fighter for Reclaiming West Bengal Identity

Sri Tapan Ghosh

Fighter for Reclaiming West Bengal Identity

Sachi G. Dastidar

For Partition Documentation Project, New York


Mr. Tapan Ghosh, a noted political activist passed away in Kolkata on July 13, 2020, sadly through Corona Virus infection.

Mr. Tapan Ghosh was a pioneering in his political activism. Since partition of Bengal and India in 1947, politics of both Bengals took extremist bend. Eastern Bengal or East Bengal or East Pakistan or Bangladesh took an intolerant anti-Hindu Islamist bend with millions of Hindus killed over time, with tens of millions of Hindus fleeing for partitioned West Bengal State of India. While western Bengal or West Bengal increasingly became intolerant anti-Hindu Left, also called “communal communism” ruled by Communist Party of India-Marxist or CPM, yet almost all their leaders chose not to live in Muslim-majority East Pakistan or Bangladesh, for Hindu India which gave them shelter. (CPM massacred many Hindus, most notable of them were killing of Hindu monks and nuns in the heart of Kolkata https://empireslastcasualty. blogspot.com/2009/07/hindu-monks-and-nuns-killed-in-india-by.html, and killing of thousands of oppressed-caste Bangladeshi Hindu peasant refugees in Marichjhapi island in southern West Bengal https://empireslastcasualty.blogspot.com/2009/08/marichjhapi-west-bengal-india-communist.html. No one has been arrested for those killings, including during anti-Communist Trinamool Congress Party Government, 2010s.)

In West Bengal, India with the rise of communal Leftism – similar to racism of the West - from 1970s, and even earlier during Congress Party rule from 1947 through late 1970s, a tradition developed among Indian Bengali Hindus, including Hindu refugees who fled their Muslim majority nations of Pakistan and Bangladesh, of their identity, as not calling them Hindu, censoring anti-Hindu atrocities in Pakistan, Bangladesh and India, not teaching uncensored Indian history during colonial Islamic ruler and Islamic settler rulers from Central Asia, as well as during colonial British history, although anti-British history was not fully censored. They also stopped teaching ancient Indian/Hindu literature till 1800s in schools and colleges as they were “Hindu” literature as all the literature had to do with worshiping Mother Nature, plants and animals, to sun, moon and water, the six seasons, deities and more, as Hindus worshiped all of those and literature were enmeshed with those. This colonial mindset also affected millennia-old music, dance,

Surprising, a young man named Tapan Ghosh rose from that soil who openly identified himself as Hindu, and started talking of defending Hindu tradition and literature. This was something very new in 1960s through 2000s. Bengali elites termed such people as “communal” to hide their own communalism. To bridge the divide between Bengali Muslims and Hindus Mr. Ghosh made trips to Bangladesh as well and to Muslim-majority areas in West Bengal in India. In 2007 he formally developed Hindu Samhati, or Hindu Togetherness, a nationalist organization, which included all groups, to empower Hindus, especially Hindus in Hindu-majority West Bengal, India who feel oppressed by the state and elites. This is something risky in violence-ridden and censor-prone politics of West Bengal. He also opposed Neo-colonialism of the elites.

One of the taboos Hindu Samhati and Mr. Ghosh broke is to raise the censored issue of killing and destruction of Hindus and Hindu shrines in Bengal – West Bengal and Bangladesh – since non-native Islamic rulers invaded Bengal and started Islamic conversion. (This writer’s own 300-year old Kali Mandir of the Black Mother was destroyed during 1950s pogrom.) It is still a taboo, but Mr. Ghosh’s Hindu Samhati published politically-incorrect calendars documenting anti-Hindu atrocities in Bangladesh and West Bengal from earlier times till the present. Mr. Ghosh presented two of their calendars, 2018 and 2020, that document some of these atrocities to Partition Center. These are completely censored in history books of Bangladesh, West Bengal, India, America and the West, and by liberal and illiberal press.

In some ways his movement may be compared to Black Lives Matter movement in America, or Armenian Genocide remembrance movement among Armenians, or Jewish Holocaust remembrances in Europe of remembering their oppressive historical events, and give courage to victims.

Sri Ghosh visited Partition Center, and visited Partition Center volunteers in India.

Ghosh with Little Saraswati of New Jersey During His Visit to the U.S.

Let us pray for his soul, as we say “He is resting in Mothers Bosom in the Heaven.” Om Shanti! Om Peace!

His last speech was on June 20, 2020 on Paschim Banga Dibas or West Bengal (Establishment) Day, at a virtual event. https://www.youtube.com/watch?v=bDLOdAvOrJ0 The lecture is in Bengali.


Here are pages from 2018 and 2020 calendars.

2020 Calendar

(The Calendar Highlights 12 Mosques Built after Destroying Hindu Mandirs [Temples])















2018 Calendar
(The Calendar Highlights 12 Major Mass Killings of Hindus and Buddhists in Bengal in the Recent Past)


January: 1964 East Pakistan Killing

February: 1950 Dhaka Killing

March: 1971 Operation Searchlight
April: 1992 Logang Massacre
May: 1971 Chuknagar Massacre
June: 1971 Golaghat Massacre
July: 2016 Attack on Dhaka Holey Artisan Bakery
August: 1946 Great Calcutta Killing
September: 2012 Ramu Violence
October: 1946 Noakhali Genocide
November: 2001 Post Election Attacks
December: 1992 Hindu Bloodbath


Jay Hyman Tribute from Probini and Partition Project

Sri Jay Hyman

Probini Foundation and ISPaD: Indian Subcontinent Partition Documentation Project Tribute

Sachi G. Dastidar

Probini & ISPaD: Partition Documentation Center, New York, Report

We are deeply saddened to inform you that we have lost one of our closest friends from inception of our two non-profits: Mr. Jay Hyman. We are sorry to bring this news during Jewish holy days, and during Easter weekend. Sri Hyman, as he preferred to call himself, was a Probini Foundation Board Member, and during Probini Board’s last meeting on Saturday, 7 March 2020, that he joined driving 25 miles after finishing a class, also wrote a check for the cause, though he was struggling financially. He was known to Dastidar family since 1971, and was the first person Sachi met in the States. He was the first person Shefali met in America in 1974 at the JFK airport of New York. Sachi met his family in Miami and Brooklyn, and Sri Hyman came running to meet Sachi’s mother in 1987 when she visited New York offering her a Jewish calendar giving time of sunrise and sunset helping Ma, and several Jewish mementos and food.

Probini Foundation honored him with Anath Bandhu (Friend of the Orphan) award for his dedicated help to the poor and the orphaned in Bangladesh and India. Since the award he adopted to write “Sri” (Mr./Ms.) before his name as many others do.

Mr. Jay Hyman was a regular attendee of Partition Center’s social-cultural-political-educational events, and attended all Partition Center Conferences beginning in 2010. He donated funds for publication of ISPaD: Partition Center Journal for the past several years. He always donated Jewish, Caribbean, Hispanic food for Partition Center and Probini events that he brought from Brooklyn where he lived. At 2019 Probini Annual lunch he was the presenter of award to Mr. & Mrs. Mihir & Aamala Sen.

Mr. Hyman had a master’s degree in Urban and Regional Planning and a master’s in Social Work. He worked at a senior center in Brooklyn, and died of Covid-19 virus.

Please join Probini and ISPaD in offering puja and prayer for his soul! On Shanti! Om Peace!


Hyman (left) presenting Award to Mihir & Amala Sen, May 2019



India Independence and Partition Event, August 2019 (Hyman, right)

 

At 2018 Conference at SUNY at Old Westbury (Hyman, front right)


At 2019 Partition Center Conference and Journal Release (Hyman, 3rd from right)


On April 15, 2020 puja-prayer for moksha (spiritual liberation) and mukti (salvation) for Jay Hyman was conducted by Hindu Monk Rev. Swami Satyapriyananda at Pranab Ashram in Bangladesh. Hyman, a Board Member, helped the ashram build a boys’ dormitory through Probini Foundation. Swami performed stuti (devotional praise) for Hyman at the beginning of the service.


Here are a few pictures from the puja service.


Additionally, Dastidar family donated funds in his memory to feed the poor during the virus lock down to Tuichawng village in Mizoram State, to Bankura orphanage, and to Kolkata city’s Majherhaat slum, all in India, and to Madaripur and Pirojpur ashrams, and to Dhaka, all in Bangladesh. Hyman helped education in all these places through Probini Foundation. 


Sunday, July 12, 2020

RARE & UNSEEN RECORDS OF THE PARTITION OF INDIA

RARE & UNSEEN RECORDS OF THE PARTITION OF INDIA !!!

Ramesh Naidoo



Four Sikh men converted forcibly into Islam https://partitionof1947.blogspot.com/2020/06/blog-post.html  

History books and source material on the bloody Partition of India https://partitionof1947.blogspot.com/2009/08/partition-of-1947-how-sikhs-saved-their.html    

Several hundred dead Hindus and Sikhs lying around the platform https://partitionof1947.blogspot.com/2009/08/time-magazine-8th-september-1947.html

Only 1,500 known survivors from a community of 120,000 Sikhs https://partitionof1947.blogspot.com/2009/08/time-magazine-sep-15-1947.html

I saw some Moslems carrying away my 16-year old daughter https://partitionof1947.blogspot.com/2009/08/time-magazine-27th-october-1947.html



****************
Amardeep Beta

Please read the harrowing tales from Time Magazine of 1947. Pathan mercenaries in Kashmir abducted my wife's cousin along with a daughter of Prof. Sahni, never to be found again. To hide the barbaric invasion, Pakistan did not allow correspondents of Time magazine into Kashmir. 

Bal K. Gupta
July 12, 2020

Tuesday, May 19, 2020

Bengali Language Martyrs in Assam, India


Bengali Language Martyrs in Assam, India

Partition Center Report
May 19, 2020

On May 19, 1961 eleven young Bengali Hindu individuals were murdered by Assam Police in Bengali majority Cachar district of Assam for asking them to be taught in Bengali in their schools. As sectarian Assamese politicians wanted to push entire Sylhet district of Assam to Islamic Republic of Pakistan, Cachar residents voted in a 1947 plebiscite to remain in India. Assam Police fired on a peaceful demonstration killing 11 young Hindu Bengali.

They are:

Srimati (Ms.) Kamala Bhattacharya
Sri (Mr.) Kanailal Niyogi
Sri Sunil Sarkar
Sri Sukomol Purakayastha
Sri Hitesh Biswas
Sri Tarani Debnath
Sri Sachindra Pal
Sri Chandi Charan Sutradhar
Sri Kumud Ranjan Das
Sri Satyendra Deb
Sri Birendra Sutradhar

Here are a few pictures of commemoration from Paschimbanger Janya (For West Bengal)







We all pay homage for their sacrifice.


BANGLADESH : MINORITY REPRESSION MAY,2020

BANGLADESH : MINORITY REPRESSION SINCE 1 OF MAY TO 15TH MAY,  2020 

Partition Project Report

In the midst of the Holy Ramadan, day-long pious fasting, and COVID-19 pandemic which is taking tens of thousands of lives worldwide, sadly attacks on Hindu minority continue in Bangladesh, as well as attack on minority Buddhists and minority tribes, for no apparent reason.

Our Partition Project has received appeals for protection. Our center has also received appeals from Bangladesh and India for helping the poor with food during COVID crisis. Several supporters of Partition Project have send funds to various corners of Bangladesh, and in the states of West Bengal and Mizoram in India.

Please help the victims. Please protect them. Please make our nations stronger.

Please be safe!

Here are a few of the incidents, in the first two weeks of May 2020.

(We have received many pictures. Those are gruesome.)


BANGLADESH : MINORITY REPRESSION SINCE 1 OF MAY TO 15TH MAY,2020 INVESTIGATED BY BDMW.
BANGLADESH MINORITY WATCH

বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ (BDMW) ১ মে হতে আজ ১৫ মে পর্যন্ত নিবির পর্যবেক্ষণ তদন্ত অনুযায়ী মোটটি মন্দিরে হামলা প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে,অযৌক্তিক,অহেতুক বিভিন্ন সুত্রে দলবদ্ধ হয়ে সংখ্যালঘুদের ওপর ১৪টি জায়গায় দলবদ্ধ হয়ে  হামলার শিকার হয়,এতে নারী পুরুষ সহ প্রায় ৫৯ জন  গুরতর আহত হয়েছেন,ধর্ম অবমাননার অভিযোগেআটক করে প্রশাসন,নিখোঁজ হয়ার পর দুই জনের লাশ নদীতে পায় স্থানীয়রা,৭ বছরের একটি সংখ্যালঘু শিশু ধর্ষণের শিকার হয় নিয়মিত উত্ত্যক্তের অতিষ্ঠ হয়ে এক সংখ্যালঘু কিশোরী আপ্তহত্যা করে।
হিন্দু সম্প্রদায়কে হেয়প্রতিপন্ন বিকারগ্রস্ত করার উদ্দেশ্যে সাবেক মেম্বারের নেতৃত্বে মৃত্যুর পর শশ্মান থেকে জোরপূর্বক লাশ কেড়ে নিয়ে ইসলাম রীতিতে(জানাজা পড়ে) লাশ দাফন সম্পন্ন করেছেন।
এই ঘটনাগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ (BDMW)কুড়িগ্রাম,মৌলভীবাজার,সুনামগঞ্জ,লালমনিরহাট,মুন্সিগঞ্জ,ব্রাম্মনবাড়িয়া,নেত্রকোনা,চট্টগ্রাম, মানিকগঞ্জ ঢাকা নবাবগঞ্জে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলো নিয়ে স্থানীয় থানা এবং পুলিশ সুপার মহাদয়গনের সাথে আলোচনা করে মাইনরিটি ওয়াচ BDMW পক্ষে তীব্র নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে অপরাধীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।।
নিম্নোক্ত ঘটনাবলী তুলে ধরা হলো.........
👉মে গোপালগঞ্জ কোটালীপাড়া উপজেলার লাখিপাড়া গ্রামে সামান্য বেল গাছের ডাল ভাংঙ্গা কেন্দ্র করে সংবদ্ধ হয়ে হামলা চালিয়েছে একই গ্রামের সংখ্যাগরিষ্ঠরা,এতে গুরুতর জখম হয়েছে পরিবারের সকলেই।
এই নিয়ে একই গ্রামে মাত্র ২৫ দিনের মাথায় তিনটা হামলার ঘটনা ঘটলো।।
👉মে মানিকগঞ্জ দেবেন্দ্র কলেজের ছাত্র রনি সত্যার্থীর ফেইইবুক আইডি হ্যাক করে একটি গ্রুপে নবী কটুক্তিমূলক বক্তব্য দেওয়া কেন্দ্র করে রনি সত্যার্থীর গ্রামের বাড়িতে হামলা করে তৌহিদ জনতা।
এই বিষয়ে সিংড়া পুলিশ ০৩০৪২০ ইং রনিকে আটক করে তার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলা দায়ের করেন।
👉মে দিনাজপুর পৌরসভারনং ওয়ার্ড বাসিন্দা পূর্ণ চন্দ্র রায় এক লক্ষ টাকা চাঁদা না দেয়ায় তার বাড়িতে মন্দিরে হামলা চালায় একই এলাকার চিহ্নিত মাস্তান মামুনগংরা।
এই বিষয়ে কোতয়ালী থানায় অভিযোগ দায়ের করেন পূর্ণ চন্দ্র রায়।।
👉মে সোমবার ভোর তিনটার দিকে চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় বিবিবিলি শান্তি বিহারে হামলা বুদ্ধ মূর্তি ভাঙচুর করেছে।
মন্দিরের অধ্যক্ষ ভদন্ত এস ধর্ম তিলক বলেন, ‘রোববার ভোর সাড়ে তিনটার দিকে দিকে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে প্রায় ৪০ জনের মত লোক মন্দিরে আক্রমণ করে। তারা মন্দিরের জানালা, প্রাচীর এবং একটি বুদ্ধ মূর্তি ভাঙচুর করে।
প্রাণে বাঁচার জন্য আমি মন্দিরের রুমের আলনার পেছনে লুকিয়ে ছিলাম।
👉মে সোমবার..
ডাঃ কাজল কুমার ভৌমিক শ্রীপুর বাজার থেকে বাড়ী যাওয়ার পথে রাত আনুমানিক ৮:৩০ মিনিটে হত্যার উদ্দেশ্যে সন্ত্রাসী হামলা করে। আশঙ্কজনক অবস্থায় তাকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হসপিটালে নেওয়া হয়েছে। কুমিল্লা মেডিকেল থেকে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হসপিটালে রেফার করা হয়েছে।
👉মে.নেত্রকোনার দুর্গাপুরে নিখোঁজ হওয়ার ৩৩ ঘণ্টা পর সোমেশ্বরীর নদীতে ভেসে উঠলো স্বপন চন্দ্র সরকার (৫৫) নামে একজনের মৃতদেহ।
সোমবার (৪ মে) সন্ধ্যার দিকে পৌর শহরের শ্মশানঘাটের পশ্চিম পাশের সোমেশ্বরী নদীতে ভেসে উঠে মৃতদেহটি। খবর পেয়ে পুলিশ ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা মৃতদেহ উদ্ধার করে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে।
👉 মে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে হবিগঞ্জ বানিয়াচং উপজেলার সুবিদপুর গ্রামের রাজকুমার সরকারের ছেলে সঞ্জয় সরকারকে আটক করেছে পুলিশ।।
👉সোমবার (০৪ মে) দুপুরে স্থানীয়রা ভেসে আসা লাশ দেখে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ কমলগঞ্জ থানাকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করলে চেনা যায়, এটি মিরতিংগা চা বাগানের মোকাম টিলা লাইনের বুদরাম রাজভরের ছেলে দোলন রাজভরের লাশ,গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দোলন রাজভর বাজারের উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। অনেক খোঁজাখুঁজি করে তাকে আর পাওয়া যায় নি। আজ সোমবার দুপুরে তার লাশ ধলাই নদীতে পাওয়া যায়। দুলন রাজভরের স্ত্রী বছরের এক ছেলে সন্তান রয়েছে।
👉 মে মঙ্গলবার ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে কটূক্তি করায় ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে তুলে রাকেশ চক্রবর্তী (১৮) নামের এক যুবককে আটক করেছে নবাবগঞ্জ থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (৫ মে) সকালে উপজেলার গালিমপুর এলাকায় তার নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে।
👉 মে...সাতক্ষীরা তালার জালালপুরের কানাইদিয়ায়
মঙ্গলবার (৫ মে) দিবাগত রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে অজ্ঞাতনামা সন্ত্রাসীরা বসত ঘরের পিছন থেকে সিঁদ কেটে ঘরে ঢোকে। এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দেশ্যে ঘুমন্ত কার্ত্তিককে ধারালো অস্ত্র লাঠিপেটা করতে থাকে। এসময় তার গোঙানিতে পাশের ঘরে ঘুমিয়ে থাকা স্ত্রীর ঘুম থেকে উঠে দরজা খুলে অবস্থা দেখে চিৎকার শুরু করেন। তাদের আত্নচিৎকারে পরিবারের অন্যান্য সদস্যসহ প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা একই পথে পালিয়ে যায়।
👉 মে গভীর রাতে নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার বাকলজোড়া ইউনিয়নের কুমুদগঞ্জ বাজার কালী মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।
 
কুমুদগঞ্জ বাজার কালী মন্দিরের বাৎসরিক কালী পূজার জন্য তৈরিকৃত কালী প্রতিমা, ডাকিনী যোগিনী প্রতিমার হাত, মাথা পা ভেঙে ফেলা হয়েছে।
ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারজানা খানম, এএসপি সার্কেল মাহমুদা শারমিন নেলী, দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মিজানুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
👉 মে মঙ্গলবার চট্টগ্রাম সীতাকুণ্ডে সকালটায়  সন্ত্রাসী ফরহাদের নেতৃত্বে সাইফুল,মহিউদ্দিন,ইউসুফ,সুজন পিঞ্জ সহ ১৫/২০ জন সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে জোড়পূর্বক চিত্তরঞ্জনের বসত বাড়ীর জায়গা দখল করে ঘর নির্মাণ চেষ্টা করে,চিত্ত রঞ্জন বাধা দেওয়ায় ক্ষীপ্ত হয়ে চিত্ত রঞ্জনকে হত্যা করার উদ্দেশ্য ফরহাদসহ অন্যান্য ভাড়াটেরা হামলা চালালে চিত্তরঞ্জন সহ তার দুই মেয়ে পিংকী দেবী(২৪) সিজারে সদ্য প্রসবকারী কলি দেবী(২৮) মারাত্মকভাবে জখম হয়ে সীতাকুণ্ড সরকারী হাসপাতালে ভর্তি হয়।

 (Internet translation)

Bangladesh Minority Watch (BDMW) has conducted intense survey a total of nine temple attacks and attack on deities, including the attacks on minorities in 14 places, from May 1 to May 15. In the case of 59 attacks, including women and men, were injured, three arrested for blasphemy, two bodies of Hindus were found in the river after being arrested by the authorities, a 7-year-old minority child was raped and a minority girl was killed in the regular violence. After the death, to humiliate and torture Hindu minority, one former member of the ruling group, took the body from Smashan (crematorium) and completed the burial of the body in the Islamic tradition.


Among these incidents, Bangladesh Minority Watch (BDMW) discussed the incidents in Kurigram, Maulivibazar, Munsimanganj, Munsiganj, Brammanbaria, Netrakona, Chittagong, Manikpur and Dhaka Nawabganj and demanded immediate arrest and exemplary punishment by the local police and super-megas.


The following events are highlighted...


👉1 May, the majority of the same village attacked with bell tree branch in Lakhipara village in kotalipara district of Gopalganj, which left a Hindu family seriously injured.
Three attacks took place in the same village in just 25 days.


👉 On May 2, the Tawhid (Muslim) people attacked the village of Roni Satyarathi, a student of the college of Manikpur, whose Facebook ID was hacked and comments were made about The Prophet. The Singra police 03.04. 20 arrested Ronnie and filed a digital security law case against him.

👉 , on 3 May, The 7th Ward resident of Dinajpur Municipality, Purna Chandra Roy, was attacked in his house and temple for nor paying 100,000 taka ransom to thug Mamungangra,.
The complaint was filed by The Kotwali police station by Purna Chandra Roy.


👉4 May at around 3 am on Monday,  Buddhist Bibibili Shanti Behar attack and Destroyed Buddha statue in The Ironage of Chittagong. "Around 40 people with weapons attacked the temple around 3:30 am on Thursday," said The temple's chief, Vandant S Dharma Tilak. They also vandalized the temple windows, walls and a Buddha statue. "I was hiding behind the mirror of the temple room to save my life.

👉 .May 4, Monday, Dr. Kazal Kumar was attacked for killing by terrorists on his way home from the Bhaumik Sripur market at around 8:30 pm. He was taken to Comilla Medical College Hospital in a critical condition. He was referred to Dhaka Medical College Hospital from Comilla Medical.

👉 May 4 The body of a man named Sooman Chandra Sarkar, 55, was found in the river Of Someshwari 33 hours after he went missing in Durgapur, Netrakona, May 4. The body was found in the Somswari River on the western side of the city's Shamshanghat (cremation area) on Monday (May 4th). Police and fire service personnel recovered the bodies and handed them over to their relatives.

👉 Police detained Sanjoy sarkar, son of the prince of Subidpur village of Banyachang district, on May 4 th for blasphemy.

👉 On Monday (May 04) afternoon, locals reported the bodies to Kamalganj Thana, including local public representatives. The body of Dolan Rajvar, son of Budram Rajvar, was found by the police after receiving information that it was the Mokam Tila Line of Mirtinga Tea Garden, and did not return from the house to The Dolan Rajvar Bazaar last Thursday evening. He was not found by a lot of search. His body was found in the River Dhalai on Monday afternoon. Dulan Rajvar has a wife and a 2-year-old son.

👉 , On Tuesday, May 5, The Nawabganj Police arrested a young man named Rakesh Chakraborty (18) for allegedly hurting religious sentiments in a social media Facebook messenger in Nawabganj Upazila, Dhaka. He was arrested from his home in the Galimpur area of the district on Tuesday (May 5th).

👉5 May...
At around 2:30 pm on Tuesday (May 5th) in Kanadia, In the city of Jalalpur, in the city of Tahar, unidentified terrorists sat in the back of the house and entered the house. At one point, terrorists used sharp weapons and batons to kill the sleeping kartik. At this time, the wife sleeping in her next room woke up and opened the door and started screaming at the situation. As neighbors, including other family members, came forward, the attackers fled the same path.


👉 The statue of the Kali Temple were erected at the Kumudganj Bazaar in Bakaljoda Union in Durgapur district of Netrakona on the night of May 5.
The hands, heads and legs of the Kali pratima, dakini and yogi statues, designed for the annual Kali puja of the Kumudganj Bazar Kali Temple, have been broken. The Deputy Executive Officer Farzana Khanam, ASP Circle Mahmooda Sharmeen Nelli, Durgapur Police Officer In charge Mo. Mizanur Rahman visited the site.


👉5 May, at 9 am in Chittagong Sitakund, the terrorist Farhad led by Sayfullo, Mohiuddin, Yusuf, Sujan and Pinz, with 15-20 terrorists forcibly tried to take over and build houses in Chittaranjan's residence, with the intention of killing Chitta Ranjan, with the help of other tenants, who injured his two daughter, Pinki Devi, 24, and Kali Devi (28) who just gave birth through cesarean section, were very seriously injured.
***************************************************************

Bangladesh : FACT FINDING BY BDMW ON THE INCIDENT OF ATTACK ON HINDU HOUSES RELATING TO FACE BOOK ISSUE AT BHOLA DISTRICT ON 16.05.2020.
ধর্ম অবমাননার অভিযোগে ভোলায় ফের হামলা-সংঘর্ষ . সূত্র " bdnews24.com
dated 16th May,2020 :

https://bangla.bdnews24.com/samagraba…/article1758992.bdnews

ফেইসবুকে শ্রীরাম দাসের ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে আবারও হামলা এবংপুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে ভোলায় গতকাল শুক্রবার

শুক্রবার জুমার নামাজের পর মনপুরার চৌমুহনী বাজারে প্রায় এক ঘণ্টা ধরে সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।

বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ এই বিষয়ে তদন্ত করছেন

পরে পুলিশ ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে বলে মনপুরা থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান।

, সি বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচকে বলেন, যে যুবকের বিরুদ্ধে (শ্রীরাম দাস) অবমাননাকর ফেইসবুক পোস্ট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে, তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনায় গত কাল তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে মামলা নং ০৫ তারিখ ১৬।০৫।২০২০ ধারাঃ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২৮, ২৪ এবং ২৫

হিন্দু সম্প্রদায়ের ওই যুবক স্থানীয় চৌমুহনী বাজারে মাছের ব্যবসা করেন। তিনি রামনেওয়াজ ইউনিয়নের নম্বর ওয়ার্ডের একজন সাবেক ইউপি সদস্যের ছেলে।

স্থানীয়দের অভিযোগের বরাত দিয়ে ওসি বলেন, বৃহস্পতিবার ওই যুবকের ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে মুসলমানদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে একটি পোস্ট দেওয়া হয়।

এর জের ধরে আজ জুমার নামাজের পর উপজেলার রামনেওয়াজ জামে মসজিদ, কাউয়ারটেক কিল্লার পাড় জামে মসজিদ চৌমুহনী জামে মসজিদের মানুষ মিছিল করে রামনেওয়াজ চৌমুহনী বাজারে জমায়েত হয়।

মিছিলের কিছু লোক বাজারে ওই যুবকের দোকানে হামলা চালালে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে বাধা দেয়, তাতে সংঘর্ষ শুরু হয়। ঘণ্টাব্যাপী সংঘর্ষের পর পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ২০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে।

পরে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেলিনা আকতার চৌধুরী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস রামনেওয়াজ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আমানত উল্লা আলমগীর ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করেন।

সংঘর্ষে আহতদের মধ্যে জহির, সাইফুল, করিম, আল আমিন, রাহাত ছোট করিমের নাম জানা গেছে। তারা সবাই উপজেলার মনপুরা ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের বাসিন্দা বলে ওসি জানান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিপুল চন্দ্র দাস বলেন, ফেইসবুকে মন্তব্য করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে মনপুরায় অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটেছে। জুমার নামাজের পর চারিদিক থেকে মিছিল করে এসে মানুষ উত্তেজিত হয়ে প্রতিবাদ করে। কিছু উশৃঙ্খল মানুষ পরিস্থিতিকে উত্তেজিত করে। সবাইকে সাথে নিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচের পক্ষ থেকে আমি অ্যাড রবীন্দ্র ঘোষ মনপুরা থানার অফিসার ইন চার্জ শাকায়াত হোসাইনের সঙ্গে তার মোবাইলে (০১৭৩৩৭৪৩০৬) কথা  বলি তিনি আমাদের বলেছেন পরিস্তিতি আয়ত্তের মধ্যে আছে হিন্দু ছেলে শ্রীরাম দাস একটি বানোয়াট ফেস বুক থেকে আসা ধর্মীয় অবমাননার খবরটি
ফরওয়ার্ড করার অপরাধে মুসলমান সম্প্রদায়ের মনে প্রানে আঘাত পাওয়ার কারনে এই আক্রমনের সুত্রপাত আমি ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোঃ কাইসারের সঙ্গে কথা বলি , তিনি আমাদের আসার খবর দিয়ে বলেন " যারা আক্রমন করেছে তাদের বিরুদ্দেও মামলা হবে এবং গ্রেতার হবে"

আমি ভোলা জেলার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিকির সাথে কথা বলি,মোঃ০১৭১৫২১১৮৯৯ তিনি বি , ডি , এম , ডাবলু কে বলেন " গতকাল আমরা সারাক্ষণ এই আক্রমনের ব্যাপারটি নিয়া ব্যস্ত ছিলাম - এই ভাবে ঘটনা জানার জন্য আপনারা বিরক্ত করলে আমরা পাগল হয়ে যাব " পরে তিনি আমাকে মনপুরা উপজেলার ইউ , এন , , বিপুল দাসের সঙ্গে কথা বলতে বলেন - আমি ইউ , এন , ,বিপুল দাসের সঙ্গে কথা বলি - তিনি বলেন ১৪ থেকে ১৫ টি মসজিদ থেকে হাজার হাজার মুসল্লি জমায়েত হয়ে ইসলামের অবমাননার বিরুদ্ধে মিছিল করতে থাকে এবং এক পর্যায়ে পুলিশের বাধা অমান্য করে ভাংচুর আরম্ব করে - হিন্দু ছেলে শ্রীরাম দাসকে গ্রেফতার করার পর পরিস্তিতি শান্ত হয় "

এর আগে গত বছরের ২০ অক্টোবর ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় এক হিন্দু তরুণের ফেইসবুক আইডি হ্যাক করে অবমাননাকর বক্তব্য ছড়ানোর পর মুসলিম তাওহিদী জনতা ব্যানারে সমাবেশ থেকে পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়েছিল কয়েকশ মানুষ।

ওইদিন দফায় দফায় সংঘগর্ষে এক মাদ্রাসাছাত্রসহ আন্তত চারজন নিহত হন, আহত হন ১০ পুলিশ সদস্যসহ শতাধিক।

বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ এহেন আক্রমনের ঘটনার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করছে - অনাহুতভাবে শ্রীরাম দাসকে গ্রেফতারের নিন্দা করছেন পুলিশ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ না নিয়ে ভুল করেছেন - অনতিবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনানুগ বাবস্তা নেবার দাবী জানাচ্ছি - শ্রীরাম দাসের ধর্ম
অবমাননার বিষয়টি সটীক তদন্ত করে তাকে ছেড়ে দেয়া হউক

দেশে এই মহামারী COVID-19 চলাকালীন জড়ো হওয়ার জন্য সরকারের নির্দেশ লঙ্ঘনের জন্য আক্রমণকারীদের গ্রেপ্তার করা উচিত।

Attacks again in Bhola on charges of insulting religion. Source
"bdnews24.com dated 16th May, 2020:

https://bangla.bdnews24.com/samagraba…/article1758992.bdnews

Another attack and clashes with police took place in Bhola District on Friday, accusing Sriram Das - a HIndu of insulting religion on Facebook.

At least 10 people were injured in an hour-long clash at Monpura's Chaumuhani Bazaar after Friday prayers on 15th May,2020.

Bangladesh Minority Watch is investigating the matter.

Later, police fired 20 rounds of blank shots to bring the situation under control, said Monpura Police Station OC Sakhawat Hossain.

O, C told Bangladesh Minority Watch that the young man (Sriram Das) who was accused of making abusive Facebook posts has been arrested. A case has been filed against him in this regard yesterday. Case No. 05
dated 16.05.2020 Section: 26, 24 and 25 of the Digital Security Act.

The young man from the Hindu community traded in the local Chaumuhani market. He is the son of a former UP member of Ward 6 of Ramnewaz Union.

Citing locals' allegations, the OC said a post was posted on Thursday from the young man's Facebook account "hurting the religious feelings of Muslims".

Due to this, people of Ramnewaz Jame Mosque, Kawartek Killa Par Jame Mosque and Chaumuhani Jame Masjid of the upazila gathered in Ramnewaz Chaumuhani Bazaar after Friday prayers.

"When some people in the procession attacked the shop of the youth in the market, the police got the news and stopped them. The clash started," he said. After an hour-long clash, police fired 20 rounds of blank shots to bring the situation under control. ”

Later, Upazila Parishad Chairman Shelina Akhter Chowdhury, Upazila Nirbahi Officer Bipul Chandra Das and Ramnewaz Union Parishad Chairman Amanat Ullah Alamgir went to the spot and tried to calm down the
situation.

Zaheer, Saiful, Karim, Al Amin, Rahat and Chhota Karim were among the injured in the clash. They are all residents of different wards of Monpura Union of the upazila, the OC said.

Upazila Nirbahi Officer Bipul Chandra Das said, “Unexpected incidents have taken place in Monpura centering on the incident of commenting on Facebook. After the Friday prayers, people came in procession from all around and protested in excitement. Some unruly people exacerbate the situation. The situation has been calmed down with everyone. ”

On behalf of Bangladesh Minority Watch, I,Adv Rabindra Ghosh spoke to Monpura Police Station Officer-in-Charge Shakaat Hossain on his mobile (0173364307) and he told us that the situation was under control. The
attack was launched after the Hindu boy, Sriram Das, forwarded the news of religious insults from a fabricated Facebook page, injuring the minds and souls of the Muslim community.

I spoke to Bhola District Deputy Commissioner Masud Alam Siddiqui, Md. 01715211799. "Yesterday we were busy with this attack all the time - we would go crazy if you bothered to find out about it like this," he
told BDMW. He said - I talked to UNO, Bipul Das - He said that thousands of Muslim devotees from 14 to 15 mosques have gathered and started marching against the insult of Islam and shouted. The situation calmed down after the arrest of Hindu boy Sriram Das.

Earlier, on October 19 last year, hundreds of people clashed with police at a rally under the banner of Muslim Tawhidi Janata in Borhanuddin Upazila of Bhola after a Hindu youth's Facebook ID was hacked and insulted.

At least four people, including a madrasa student, were killed and more than 100 others, including 10 policemen, were injured in clashes on the same day at that time.

Bangladesh Minority Watch strongly condemns the attack - unwittingly condemning the arrest of Sriram Das. The police have made a mistake by not taking legal action against the attackers - BDMW demand immediate
arrest of the attackers and legal action - let Sriram Das be released after a thorough investigation into the alleged blasphemy. The attackers should be arrested for violating instruction of the Government for assemble during this Pandemic COVID-19 in the country

*************************************************
Potuakhali Attack on May 16, 2020




পটুয়াখালী জেলার কলাপাড়া থানার অন্তর্গত পাখিমারা গ্রামের এক সংখ্যালঘু পরিবারের উপর সুলতান গ্রুপের লাঠিয়াল বাহিনীর আঘাতে তিনজন হিন্দু মহিলা গুরুতর আহত হয়েছে , ঘরে থাকা আসবাবপত্র থেকে আরম্ব করে সোনা দানা মুলবান সামগ্রী লুটপাট হয়েছে গতকাল ১৬ মে ২০২০ তারিখে বিকেল বেলা আহতদের এখন কলাপাড়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে আহতরা বলেছেন জোর করে ভুমি দখল করার প্রয়াসে এই হামলা লুটপাট করেছে সুলতান গ্রুপের প্রভাবশালী মহল পুলিশ লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধার করতে পারে নাই
বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচের অ্যাডভোকেট রবীন্দ্র ঘোষ এহেন আক্রমনের খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান তার মোবাইল (০১৭৭১৩৩৭৪৩২৩) নাম্বারে যোগাযোগ করলে তিনি গত রাত্রে আমাকে বলেন "কোন সংখ্যালঘু নির্যাতন হয়নি" আমি পুনরায় ওসিকে মোবাইল করে ঘটনা জানতে চাইলে তিনি আমাকে উত্তরে বলেন "একটি সাধারণ ঘটনা ঘটেছে মাত্র" পরপর রাত্রে আমি পটুয়াখালী জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে তার মোবাইলে (০১৭১৩৩৭৪৩১১) ঘটনাটি ধামা চাপা দেয়ার ইংগিত বহন করে বলাতে তিনি সঙ্গে সঙ্গে রাতেই থানার ওসিকে তাড়াতাড়ি মামলা নিতে নির্দেশ দেন
থানার ,সি মোস্তাফিজুর রহমান পুলিশ সুপারের নির্দেশে মামলা রেকর্ড করেন এবং দুইজন আসামিকে হামলার অপরাধে গ্রেপ্তার করেন আসামিরা হলো মোঃ মিজান মিয়া (৩৫) মোসাম্মৎ রুমা বেগম (২৪) উভয়ে পাখিমারা গ্রামের সুলতান গ্রুপের লাঠিয়াল
এই মামলার তদন্তকারী অফিসার মোঃ আবুল হোসেন বাংলাদেশ মাইনোরিটি ওয়াচ কে বলেন কলাপাড়া থানার মামলা নাম্বার ১২ তারিখ ১৭।০৫।২০২০ দণ্ডবিধি আইনের ১৪৩/১৪৮/৩২৫/৩২৩/৩০৭/৩৮০/ ৩৭৯/৪২৭/৩৫৪/৫০৬ ধারা এই মামলায় জন আসামি গ্রেফতার হয়েছে বলে জানিয়েছেন - অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানিয়েছেন
মামলার আসামীরা হলঃ-
) মোঃ নিজাম মিয়া (৩৭), ) আলাউদ্দিন মিয়া (৪৫) , ) জসীম মিয়া (৫০) , ) কাবির গাজী (৪০) , ) মোঃ রাজ্জাক সরদার (৫৫) , ) মসাম্মত লাইলা বেগম (৪৮) , ) মসাম্মত রুমা বেগম (৩০) ,) ঝরনা বেগম (৩২), ) মোঃ আমিরুল ইসলাম (৬৫) আরও নাম না জানা - জন
হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত বৃদ্ধা শোভারানী কে জিজ্ঞাসা করলে তিনি কান্না বিজড়িত কন্ঠে এক সাংবাদিক মাসুদ পারভেজের মোবাইল (০১৬২৪৮০৪০৬০) থেকে তার উপর যে সহিংসতা, হামলা লুটপাট হয়েছে তার বিবরণী দেন তিনি আরও বলেন তার পুত্রবধু তাপসী রানি (৩৫)এবং অন্য পুত্রবধু মালতী রানী (২৮) কে সন্ত্রাসীরা দেহের বিভিন্ন অংশে নিলাফুলা জখম করে এবং তাদের হাতের , কানের এবং আল মিরাতে থাকা সোনার চেইন লক্ষ টাকা পরিমান সম্পদ লুট করে
বৃদ্ধা শোভারানী কাপতে কাপতে আরও বলেন " আমাদের প্রানে মেরে ফেলার জন্য এই হামলা করা হয়েছে- আমরা ইহার বিচার চাই "
পাখিমারা গ্রামের নিলগঞ্জ উনিয়নের মেম্বার শ্রী জগত জীবন রায় বি , ডি , এম , ডাবলু কে বলেন এই ধরনের অ্ত্যাচার আমরা ৭১ সালের পাকিস্তানের অ্ত্যাচারকে হার মানিয়েছে তিনি আরও বলেন সুলতান গ্রুপের লাঠিয়াল বাহিনীর কাছে আমরা সবাই জিম্মি - আমাদের এই অ্ত্যাচার থেকে বাঁচান মুসলমান সম্প্রদায়ের এক বাক্তি নাম প্রকাশ না করার সর্তে আমাকে বলেন " আপনি দয়া করে এই অসহায় সংখালঘু পরিবারকে বাঁচান - আল্লা আপনার মঙ্গল করবেন "
বাংলাদেশ মাইনরিটি ওয়াচ এহেন আক্রমন , লুটপাট এবং সন্ত্রাসী কার্যকলাপের তীব্র নিন্দা করেছেন , অনতিবিলম্বে প্রত্যেক দুষী হামলাকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদানের দাবী জানাচ্ছে
জাতিসংঘ ঘোষিত জাতীয় বা জাতিগত, ধর্মীয় এবং ভাষাগত সংখ্যালঘু সম্পর্কিত ব্যক্তিদের অধিকার সম্পর্কিত ১৮ ডিসেম্বর ১৯৯২ এর ৪৭/১৩৫ জেনারেল ঘোষণা সরকার মানতে বাধ্য
Three Hindu women were seriously injured when Sultan group's batons attacked a minority family in Pakhimara village under Kolapara police station of Patuakhali district. Gold ornaments and valuables were looted from the locked up furniture in the house on May 16, 2020 afternoon. The injured are being treated at Kalapara Health Center. The injured said the perpetrators carried out attack & hooliganism by influential members of the Sultan group in an attempt to seize the land by force. Police failed to recover the looted materials from the perpetrators.
Advocate Rabindra Ghosh of Bangladesh Minority Watch immediately contacted Khandaker Mostafizur Rahman, Officer-in-Charge of Kalapara Police Station on his mobile number (01713374323). "A simple incident just happened. said the O.C" I immediately talked with the District Superintendent of Police on his cell phone (01713374311), he told the story carries a bow and cover with the points of the night, the police Super immediately ordered the case.
Police Station OC Mostafizur Rahman recorded the case on the instructions of the Superintendent of Police and arrested two accused for assault. The accused are Mohammad Mizan Mia (35), Mosammat Ruma Begum (24) and both of them are members of Sultan group of Pakhimara village.
The investigating officer of this case Md. Abul Hossain told Bangladesh Minority Watch that the case number 12 of Kalapara police station is dated 16.05.2020 Section 143/146/325/323/306/360/369/428/354/508 of the Penal Code recorded . He said two accused had been arrested in the case - adding that efforts were being made to arrest the other accused.
The accused in the case are: -
1) Md. Nizam Mia (38), 2) Alauddin Mia (45), 3) Jasim Mia (50), 4) Kabir Gazi (40), 5) Md. Razzak Sardar (55), 6) Masammat Laila Begum (48) , 6) Masammat Ruma Begum (30), 6) Jharna Begum (32), 9) Md. Amirul Islam (65) and 5-6 unnamed people.
When the injured old lady Sova Rani, who was undergoing treatment at the hospital, was asked, she gave a tearful voice about the violence, assault and looting that took place on her from the mobile phone of a journalist Masood Parvez (01724604060). She further said that his daughter-in-law Ms. Tapsi Rani (35) and his other daughter-in-law Ms. Malati Rani (26) were injured by terrorists in different parts of the body and the gold chains on their hands, ears and within Almirah were looted to the tune of Taka 3 lakh.
Shri Jagat Jiban Roy, a member of Nilganj Union Parishad in Pakhimara village, told B, D, M, W, that such atrocities have defeated the atrocities of Pakistan in 1971. "We are all hostages to the Sultan's baton force - save us from this tyranny," he said. One member of the Muslim community, speaking on condition of anonymity, told me, "Please save this helpless minority family - may Allah bless you."
Bangladesh Minority Watch strongly condemns such attacks, looting and terrorist activities, demanding the immediate arrest and punishment of every guilty attacker. The Minorities should be protected.
জাতিসংঘ ঘোষিত জাতীয় বা জাতিগত, ধর্মীয় এবং ভাষাগত সংখ্যালঘু সম্পর্কিত ব্যক্তিদের অধিকার সম্পর্কিত ১৮ ডিসেম্বর ১৯৯২ এর ৪৭/১৩৫ জেনারেল ঘোষণা সরকার মানতে বাধ্য
  

Through :-

 Founder President,
Bangladesh Minority Watch,
43, Shahid Nazrul Islam Shorok,
Chowdhury Mall (5th Floor)
Hatkhola Road, Tikatully, 
Dhaka-1205.

*********************************************

Killing of a Hindu peasant in Nasirnagar, Brahmanbaria, Bangladesh, May 17, 2020. 



In January of 2020, murtis (statues) of Goddess of Learning Saraswati were destroyed at many puja celebrations.

A few years back an entire Hindu village was torched for no reason.

*********************************

On May 18, 2020 baul folk singer Ronesh Thakur (Hindu) home was torched to the ground at Sunamganj, Bangladesh. 




 https://www.thedailystar.net/country/news/music-room-baul-shah-abdul-karims-disciple-torched-sunamganj-1904065
************************************
Hindus denied food in a charity give away in Bangladesh https://www.youtube.com/watch?v=MCjw6f3IMxw

**************************************

Hindus denied food during COVID crisis in Pakistan https://www.youtube.com/watch?v=rKMuv9U8EJU